এলো সরকারি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ‘বৈঠক’, ডাউনলোডে আগ্রহ নেই!

এলো সরকারি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ‘বৈঠক’, ডাউনলোডে আগ্রহ নেই!
এলো সরকারি ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ ‘বৈঠক’, ডাউনলোডে আগ্রহ নেই!

দেশীয় এই ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপটি তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের প্রোগ্রামারা তৈরি করেছেন।অ্যাপটি ফ্রি হলেও ব্যবহারকারীদের ডাউনলোডে আগ্রহ নেই!

গুগল প্লে স্টোর-এ এপ্রিলের ৪ তারিখে উঠানো হলেও গত ২২ দিনে মাত্র হাজার খানেক ডাউনলোড হয়েছে তাও অনেকে এটি ব্যবহার করছে না আবার ডাউনলোড করার পর মুছেও দিয়েছেন।

ডাউনলোডকারীদের মধ্যে থেকে একজন বলেছেন এটি একটি ওপেন সোর্স স্ত্রিমিং সফটওয়্যার যার নাম jitsi meet app সেখান থেকে এটিকে কপি করে নাম দেয়া হয়েছে ‘বৈঠক’।

রোববার পরীক্ষামূলকভাবে ‘বৈঠক’ অ্যাপটি চালু করা হয়। পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন এই অ্যাপেই এক কনফারেন্সে অ্যাপটির উদ্বোধন করেন। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

উদ্বোধনের পর পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ব্যবহারের জন্য এটি হস্তান্তর করা হয়। অনুষ্ঠানে পলক জানান, শুরুতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ব্যবহার করলেও এরপর সরকারি অন্যান্য মন্ত্রণালয় ও বিভাগ ব্যবহার করবে। শেষে সবার জন্য উম্মুক্ত করা হবে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাপটি উদ্বোধনকালে বলেন, বৈঠকের মাধ্যমে জুমসহ অন্যান্য অ্যাপের ওপর নির্ভরতা কাটিয়ে ওঠা যাবে।

ডেটা সিকিউরিটি নিয়ে সব সময় সজাগ থাকতে হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, মন্ত্রণালয়ের কাজকর্ম সঠিকভাবে এগিয়ে নিতে এবং সার্বিক যোগাযোগ আরও বেগবান করতে প্লাটফর্মটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

অ্যাপটি জুম, ওয়েবেক্স, টিমজের মতো বৈশ্বিক অ্যাপের সঙ্গে প্রতিযোগিতার জন্য প্রস্তুত করে তোলার কথা উল্লেখ করে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, অ্যাপটি হোস্ট করা হয়েছে নিজস্ব ন্যাশনাল ডাটা সেন্টারে। ফলে বৈঠকে যে ভিডিও, তথ্য শেয়ার করা হবে সব কিছুই বাংলাদেশেই থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপকল্প সফলভাবে বাস্তবায়ন করা সম্ভব হয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতির কারণে দেশের মানুষ ডিজিটাল বাংলাদেশের বাস্তবতা ও প্রয়োজনীয়তা যথাযথভাবে উপলব্ধি করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি বলেন, অ্যাপটির বেটা ভার্সন ব্যবহারের মাধ্যমে যে সকল পরামর্শ পাওয়া যাবে সেগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করে ‘বৈঠক’ ভিডিও কনফারেন্সিং অ্যাপ সকলের জন্য উন্মুক্ত করা হবে।

প্রতিমন্ত্রী জানান, অ্যাপটি তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের বিজিডি ই-গভ সার্ট এর নিজস্ব জনবলে তৈরি করা হয়েছে। এ ‘বৈঠক’ প্লাটফর্মটি তৈরির জন্য সরকারের কোনো অর্থ ব্যয় হয়নি।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, অ্যাপটির প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো ব্যবহারকারীর কম্পিউটার বা অন্য কোনো ডিভাইস হতে ভিডিও ও অডিও এনক্রিপটেড অবস্থায় সার্ভারে প্রেরণ করা হয় এবং তা এনক্রিপটেড অবস্থায় অন্যান্য সংযুক্ত ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে ডিক্রিপ্ট করা হয়। ফলে ম্যান ইন দ্যা মিডল আক্রমনের মাধ্যমে তথ্য চুরি বা আড়িপাতা সম্ভব নয়।

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহি পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব।

বৈঠক
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়