ঢাকা | রবিবার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯ |
২৮ °সে
|
বাংলা কনভার্টার
walton

‘প্রেস্টিজ’ রক্ষায় ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পরীক্ষামূলক কানাডার ফ্লাইট

‘প্রেস্টিজ’ রক্ষায়  ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে পরীক্ষামূলক কানাডার ফ্লাইট
বিমানের ঢাকা-টরোন্টো ফ্লাইট চালু নিয়ে সোনারগাঁও হোটেলে বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী ও বাংলাদেশে কানাডার হাই কমিশনার লিলি নিকোলস। ছবি: সংগৃহীত

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, নিয়মিত ফ্লাইট চালু হতে আরও অন্তত তিন মাস সময় লাগলেও দেশের ‘প্রেস্টিজ’ রক্ষায় পরীক্ষামূলক এই ফ্লাইট যাচ্ছে।

ঢাকার সোনারগাঁও হোটেলে কানাডিয়ান হাইকমিশনের উদ্যোগ আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, একদিন বাদে ২৬ মার্চ প্রতিমন্ত্রীসহ সরকারি কর্মকর্তারাই মূলত এই ফ্লাইটে কানাডা যাচ্ছেন। বোয়িং ৭৮৭-৯ ড্রিমলাইনার দিয়ে এই ফ্লাইট পরিচালনায় খরচ হচ্ছে ৪ কোটি টাকা।

এ মাসের শুরুতে ঢাকা থেকে কানাডায় সরাসরি বাণিজ্যিক বিমানের ফ্লাইট চালুর ঘোষণা দেওয়া হয়। ২৬ মার্চের ওই ফ্লাইটের টিকেট বিক্রির ঘোষণাও গত শনিবার দিয়েছিল বিমান।

কিন্তু কয়েক ঘণ্টা পরই ‘টিকেট শেষ’ ঘোষণা দেওয়া হয় বিমানের ওয়েবসাইটে। পরে জানানো হয়, ওই ফ্লাইটের টিকেট সাধারণ যাত্রীদের জন্য নয়।

ওই ফ্লাইটের বিষয়ে সরকার কিংবা বিমানের তরফে আর কোনো বক্তব্য না আসায় তা নিয়ে নানা আলোচনা ছড়ায়। ওই ফ্লাইটে কারা কানাডা যাচ্ছেন, সেই প্রশ্নও উঠে।

এই প্রেক্ষাপটে পরীক্ষামূলক সেই ফ্লাইটের যাত্রার আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে আসেন বিমান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব। প্রধান অতিথি হিসেবে আসা প্রতিমন্তীর সঙ্গে বিশেষ অতিথি ছিলেন কানাডার হাইকমিশনার লিলি নিকোলস। উপস্থিত ছিলেন বিমানের করপোরেট প্ল্যানিং ও প্রশিক্ষণ বিভাগের পরিচালক মাহবুব জাহান।

‘প্রেস্টিজ’ রক্ষার ফ্লাইট

লিখিত বক্তব্যে বিমান প্রতিমন্ত্রী বলেন, কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশিদের দীর্ঘদিনের দাবি পূরণে বিমানের সরাসরি ফ্লাইট চালুর উদ্যোগ নেওয়া হয়।

২৬ মার্চ দিন ঠিক করার বিষয়ে তিনি বলেন, “গত দুই তিন বছর থেকেই আমাদের প্রত্যাশা ছিল যে কানাডা ফ্লাইটটা আমরা অপারেট করতে পারব। শেষ পর্যন্ত তাদের সাথে (কানাডীয় কর্তৃপক্ষ) সব কিছু যখন আমাদের চূড়ান্ত হয়েছে, তখন আমরা ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসকে স্মরণীয় করতে ফ্লাইট শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। এটা সাংবাদিক সম্মেলন করে তুলেও ধরা হয়েছিল।

“ঠিক সাংবাদিক সম্মেলনের পরে আমরা একটি মেইল পেলাম, সেখানে জানানো হলো বোর্ডিং সিস্টেম অটোমেটেড করতে তাদের ১২ সপ্তাহ সময় লাগবে। এরপর আমরা অনুরোধ করি এই বিশেষ দিনে যাতে প্রথম ফ্লাইটটা আমরা অপারেট করতে পারি। এ ব্যবস্থা যাতে তারা করে।”

পরীকল্পনা মতো নিয়মিত ফ্লাইট চালু এখন শুরু না হলেও ২৬ মার্চ দিনটি ঠিক রাখতে পরীক্ষামূলক ফ্লাইটের যাত্রা বলে জানান প্রতিমন্ত্রী মাহবুব।

“আমাদের জন্য কিন্তু এটা একটা প্রেস্টিজ ইস্যু। আমরা চিন্তা ভাবনা করেই অপারেট করছি। ২৬ মার্চ ফ্লাইট শুরুটা জরুরি ছিল। এটা প্রেস্টিজ, কানাডায় ফ্লাইট আমাদের প্রেস্টিজ ইস্যু। আমরা বেছে নিয়েছিলাম ২৬ তারিখ থেকে ফ্লাইট শুরু হবে।”

সংবাদ সম্মেলনে হাইকমিশনার লিলি নিকোলস এই ফ্লাইট চালুর গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, দুই দেশের মধ্যে প্রায় ৩ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য হয় বছরে। প্রায় ১ লাখের বেশি বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এখন কানাডীয় নাগরিক। ৮ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী কানাডায় লেখাপড়া করছে। সরাসরি ফ্লাইট একটা সুযোগ দুই দেশের মানুষের মাধ্যে আরও যোগাযোগ বাড়ানোর।

নিয়মিত ফ্লাইট চালুতে আরও তিন মাস সময় লাগার কারণ নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন হাইকমিশনারকে।

জবাবে তিনি বলেন, “এগুলো খুবই উচ্চ পর্যায়ের টেকনিক্যাল বিষয়। নিরাপত্তাসহ আরও কিছু কাজ বাকি আছে, এ কারণে সময় লাগছে। প্রথমবারের মতো বাণিজ্যিক ফ্লাইট চালু হবে, এ কারণে সময় লাগবে।”

৪ কোটি টাকা খরচ

এই ফ্লাইট পরিচালনায় ‘ম্যাক্সিমাম ৪ কোটি টাকা’ খরচ হচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান বিমানের পরিচালক মাহবুব জাহান।

গত ৫০ বছরে কখনও পরীক্ষামূলক বাণিজ্যিক ফ্লাইটের কথা শোনা যায়নি। প্রতিবারই নতুন রুটের ক্ষেত্রে একটি ‘উদ্বোধনী ফ্লাইট’ যাত্রা শুরু করেছিল। কিছুদিন আগে বিমানের শারজাহ ফ্লাইটও একইভাবে উদ্বোধন হয়েছে।

সেখানে ৪ কোটি টাকা ব্যয়ে একটি ‘পরীক্ষামূলক বাণিজ্যিক ফ্লাইট’ পরিচালনার যৌক্তিকতা নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে প্রতিমন্ত্রী মাহবুব বলেন, “এটা প্রয়োজন, আমাদের দেশের জন্য।

“কানাডার সাথে আমাদের একটা ফ্লাইট অপারেট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। পৃথিবীর অনেক দেশই পারছে না। আমি বিশ্বাস করি, আপনারা খুশি হবেন।”

৩৬ জন সাধারণ যাত্রীও যাচ্ছেন

পরীক্ষামূলক এই ফ্লাইটে ৩৬ জন সাধারণ যাত্রীও যাচ্ছেন বলে জানান বিমানের পরিচালক মাহবুব জাহান; তবে তাদের পরিচয় জানা যায়নি।

বিমানের পরিচালক বলেন, “ফ্লাইটটিতে ৩৬ জন সাধারণ যাত্রী যাচ্ছেন। তাদের মধ্যে ৩০ জন ইকোনমি ক্লাসের। প্রতিটি টিকিটের দাম ৭৫ হাজার ৮০০ টাকা। বিজনেস ক্লাসে টিকেট করেছে ৬ জন। প্রতিটি টিকিটের দাম ১ লাখ ১১ হাজার টাকা। এগুলো সব ওয়ানওয়ে।”

বিক্রির ঘোষণার পরপরই টিকেট না পাওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, “টিকিট সোল্ড আউট- এটা আমরা কখনও বলিনি।”

এই ফ্লাইটের সময় নিয়ে বিমান পরিচালক মাহবুব বলেন, “২৬ তারিখ যে ফ্লাইটটা যাচ্ছে, সেটাতে আমাদের নির্ধারিত যে রুট রাশিয়ার উপর দিয়ে, সেটা দিয়ে যাচ্ছি না। যেহতু এখন সেখানে যুদ্ধ চলছে।

এ কারণে আমাদের ফ্লাইটের ডিউরেশন ২ ঘণ্টা বেড়ে যাবে। যখন স্বাভাবিক বাণিজ্যিক ফ্লাইট শুরু হবে, তখন যাওয়ার সময় লাগবে ১৬ ঘণ্টা আর আসার সময় লাগবে ১৫ ঘন্টার মতো।”

টরন্টো রুট বাণিজ্যিকভাবে লাভজনক হবে কি না- জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমরা মার্কেট রিসার্চ করেছি যে কোথাও হক (ট্রানজিট) দিয়ে যাওয়ার চেয়ে ২ থেকে ৩০০ ডলার বেশি দিয়ে যাত্রীরা সরাসরি ফ্লাইট প্রেফার করেন।

“আমাদের প্রডাক্টটা যেহেতু প্রিমিয়াম হবে, আমাদের প্রবাসী ভাইয়েরা ১০-২০ হাজার টাকা বেশি দিতে রাজি থাকবেন বলে আমরা আশা করি।”

তিনি জানান, পরীক্ষামূলক ফ্লাইটে ১৩০ থেকে ১৪০ জন যাত্রী যাচ্ছেন। তবে যখন স্বাভাবিক ফ্লাইট চলবে, তখন ২২০ থেকে ২৩০ জন যাত্রী নেওয়া হবে।

কানাডা,ফ্লাইট
আরও পড়ুন -
  • সর্বশেষ
  • পাঠক প্রিয়